News before News

দুঃসময়ের প্রয়োজনে নেই অঙ্গ সংগঠন, নেপথ্যে কমিটি আটকে থাকা 

নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি কোন অঙ্গ সংগঠনেরই নেই মেয়াদ। কমিটি হয়না একটি অঙ্গ সংগঠনেরও, হবে হবে করে ঝুলে থাকা কমিটির নেতারাও এখন আর আশা করছেন না কমিটির। দলের এই দুঃসময়ে তাই জেলা ও মহানগর বিএনপির কোন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীকে প্রয়োজনে পায়নি দল।
জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দলসহ দলের সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কমিটি নেই দীর্ঘদিন ধরেই। যাও আছে তার মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক আগেই। দলের নেতাকর্মীরা এখন আর নতুন নেতৃত্ব পাচ্ছেন না। কমিটি না হওয়াতে সৃষ্টি হচ্ছেনা নতুন নেতৃত্ব ও কর্মী।
নারায়ণগঞ্জের এতগুলো ওয়ার্ড ইউনিয়ন থানা কলেজ কোথাও দলের কমিটি নেই। নেতৃত্ব নেতা ও কর্মীও নেই এসব ইউনিটে। দলের যেসব নেতারা দীর্ঘদিন ধরে দলের এসব ইউনিট কমিটির জন্য রাজপথে ব্যাপক দৌড়ঝাপ করতেন তারাও এখন মুখ ঘুরিয়ে নিচ্ছেন। পিছনে ফিরে তাকিয়ে নিজেদের দীর্ঘদিনের পরিশ্রমের খতিয়ান ও প্রাপ্তিকে একটূ ঘেটে নিয়ে এখন আর দলের দুঃসময়েও এসব নেতারা সামনে আসছেন না। দলের জন্য কাজ করেন যখন দল থেকে একটি পরিচয় জোটেনা তখন আর নেতাকর্মীরা কাজ করতে আগ্রহী হচ্ছেন না।
নেতাকর্মীদের মতে, দীর্ঘদিন ধরেই কমিটি নেই। রাজপথের নেতাকর্মীদের দিয়ে কমিটিগুলো দিয়ে দিলে রাজপথে আজ কর্মসূচী পালনের জন্য নেতাকর্মীদের অভাব হতোনা কিন্তু কই। দল থেকে কাউকে দায়িত্বও দেয়া হয়না কমিটিও দেয়া হয়না। দল যারা নিয়ন্ত্রণ করেন তারা তো শুধু নির্বাচন মনোনয়ন নিয়েই ব্যস্ত। সংগঠন যদি গুছানো না হয় তাহলে আগামীতে আরো বড় আন্দোলনে গেলেও দলের নেতাকর্মীদের একই অবস্থার শিকার হতে হবে। কমিটি আটকে রেখে দলের নেতাদের কি এমন লাভ সেটিই নেতাকর্মীদের বোধগম্য নয় বলে জানা তারা।
নেতাকর্মীরা জানান, দলের এই আপদকালীন দুঃসময়ের কথা বিবেচনা করে নেতাদের উচিত সামনের দিনকে মাথায় রেখে অন্তত দলের আপদকালীন কমিটি ঘোষণা করা। কতগুলো সংগঠন, এসব সংগঠনের কতগুলো ইউনিট। কত হাজার হাজার নেতাকর্মী দল চাইলেই সৃষ্টি করতে পারে কিন্তু দল তা করছেনা। কমিটি ও পদ পদবি না থাকলে এমনিতে কেউই দলের জন্য এমন স্রোতের বিপরীতে কাজ করতে চাইবেনা।
দ্রুত দলের আগামী দিনের কথা বিবেচনায় নিয়ে দলের শীর্ষ পর্যায়ের এসব নিয়ে ভেবে দলের হাজার হাজার নেতাকর্মীদের ব্যাপারে একটি সিদ্ধান্তে আসতে অনুরোধ জানিয়েছেন দলের নেতাকর্মীরা। একই সাথে আটকে থাকা সকল কমিটিকে আপদকালীন কমিটি হিসেবে ঘোষণা করে ছেড়ে দিতেও অনুরোধ করেন নেতাকর্মীরা।
আপনার এগুলো পছন্দ হতে পারে