News before News

ফতুল্লায় স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া করায় ইয়াবা সেবন করিয়ে হত্যা

নারায়ণগঞ্জের বক্তাবলী লক্ষীনগর এলাকায় পুলিশ সোর্স আলমগীর হোসেনের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া করায় ইটখোল শ্রমিক দেলোয়ার হোসেনকে ইয়াবা সেবন করিয়ে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়। এ হত্যাকান্ডে আলমগীরের সঙ্গে তার আরো দুই বন্ধু অংশ নেয়।

৯ এপ্রিল সোমবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ূন কবীরের আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে আলমগীর হোসেন।

মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই শাফিউল আলম বলেন, হত্যাকান্ডে নিহত ও হত্যাকারীরা সকলে এলাকার চিহ্নিত মাদক সেবী এবং মাদক ব্যবসায়ী। আলমগীর আসামী ধরতে পুলিশকে সহযোগীতা করত। তবে কোন পুলিশ অফিসারের নিয়মিত সোর্সগিরি করতো না।

তিনি আরো জানান, আলমগীর হোসেনের স্ত্রী মিনু বেগমের সঙ্গে দেলোয়ার হোসেন পরকীয়া প্রেম করত। এনিয়ে ক্ষোভে আলমগীর হোসেন ৫ জানুয়ারী ভোরে কাজের কথা বলে দেলোয়ারকে বাসা থেকে ডেকে আনে। এরপর লক্ষ্মীনগর আশিক ব্রিকফিল্ডে নিয়ে শ্রমিকদের ঘরে ইয়াবা সেবন করে কুপিয়ে হত্যা করে। এসময় আলমগীরের সঙ্গে হত্যাকান্ডে হৃদয় ও সাদ্দাম ছিলো। এঘটনায় হৃদয় ও সাদ্দাম ৭ এপ্রিল দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।

আপনার এগুলো পছন্দ হতে পারে