News before News

সোনারগাঁয়ে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার আনন্দবাজার টেকপাড়া এলাকায় সোমবার রাতে এক কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। নিহত ওই ব্যক্তির নাম মোঃ সানাউল্লাহ (৪০)। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। অভিযোগ উঠেছে, মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ গ্রুপের সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে ওই ব্যক্তিকে হত্যা করেছে।
তবে, এ ব্যাপারে নিহতের পরিবারের দাবী, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করেছে। ঘটনার পর থেকে পুরো আনন্দবাজার এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে ওই এলাকায় পুলিশী টহল জোরদার করা হয়েছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বৈদ্যোরবাজার ইউনিয়নের খামারগাঁও এলাকায় বসবাসরত মিছির আলী মিয়ার ছেলে মোঃ সানাউল্লাহ মিয়া দীর্ঘদিন যাবত এলাকায় একটি সিন্ডিকেট তৈরী করে মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল। পুলিশ তাকে বিভিন্ন সময় একাধীকবার মাদক দ্রব্যসহ তাকে গ্রেফতার করে মামলা দায়ের করলেও বন্ধ হয়নি তার মাদক বিক্রি। অভিযোগ উঠেছে, মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রন ও মাদকের পাওনা টাকা লেনদেনকে কেন্দ্র করে গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে প্রতিপক্ষ গ্রুপের সন্ত্রাসীরা সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে সানাউল্লাহকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। নিহতের পরিবারের দাবী, গোষ্টিগত দ্বন্ধ ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে টেকপাড়া গ্রামের আলামিন ও আমির হোসেনের নেতৃত্বে টেকপাড়া গ্রামের পাশে মেঘনা নদীর তীরবর্তী এলাকায় ৭/৮ জন সন্ত্রাসী মিলে সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে মোঃ সানাউল্লাহকে নৃসংসভাবে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী মূমুর্ষ অবস্থায় তাকে উদ্ধারের পর সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা করে।
সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মোরশেদ আলম পিপিএম জানান, নিহত সানাউল্লাহ একজন চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় একাধীক মাদক মামলা রয়েছে। মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রকে কেন্দ্র করে এ হত্যাকান্ড ঘটে থাকতে পারে। পুলিশ পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে ও ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান শুরু করেছে।
আপনার এগুলো পছন্দ হতে পারে