News before News

অর্থ বরাদ্দ বিল পাস, সচল মার্কিন সরকার

সোমবার (২২ জানুয়ারি) রাতে সংসদের দুই কক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস ও সিনেটে উত্থাপিত হলে বিলটি যথাক্রমে ২৬৬-১৫০ ও ৮১-১৮ ভোটে পাস হয়ে যায়।

আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকারের কার্যক্রম চালাতে প্রয়োজনীয় অর্থ ছাড়ে গত ১৯ জানুয়ারি সিনেটে এ বিলটি নিয়ে ভোটাভুটি হয়। কিন্তু আলোচনা চললেও ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান ও বিরোধী ডেমোক্র্যাটরা সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হওয়ায় শেষ পর্যন্ত স্বল্প মেয়াদের বিলটি আটকে যায়। এতে কেন্দ্রীয় সরকারের কার্যক্রম অচল (শাটডাউন) হয়ে পড়ে। বিপাকে পড়েন হাজারো সরকারি কর্মচারী। বেতন-ভাতা বন্ধ হয়ে যায় অনেকের। প্রেসিডেন্ট পদে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম বর্ষপূর্তিতে তাকে এই পরিস্থিতিতে পড়তে হয়।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, হোয়াইট হাউস ও সংসদ একটি দলের (রিপাবলিকান) অধীনে থাকার পরও সরকারে অচলাবস্থা তৈরি এই প্রথমবারের মতো ঘটলো যুক্তরাষ্ট্রে।

তবে কয়েকদিন দু’দলের মধ্যে দফা-রফার পর বিলটি পাসের পথ তৈরি হয়। এ বিষয়ে সিনেটর চাক শুমার জানান, তরুণ অভিবাসীদের বিতাড়ন ঠেকাতে রিপাবলিকানরা পদক্ষেপ নেওয়ার অঙ্গীকার দিলে ডেমোক্র্যাটরা এ বিলে সমর্থন দিতে রাজি হয়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও অচলাবস্থা কাটাতে বিলে সই করেছেন। বিল অনুযায়ী, ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সাময়িক অর্থবরাদ্দ থাকবে।

এর আগে প্রেসিডেন্ট পদে বারাক ওবামা ক্ষমতায় থাকাকালে ২০১৩ সালেও অচলাবস্থা তৈরি হয়েছিল মার্কিন সরকারে। তখন ডেমোক্র্যাটদের সঙ্গে রিপাবলিকানরা সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হওয়ায় ১৬ দিন বন্ধ থাকে কেন্দ্রীয় সরকারের কার্যক্রম। এই অর্ধমাসেরও বেশি সময়ের অচলাবস্থায় বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠানো হয় কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মচারীদের।

আপনার এগুলো পছন্দ হতে পারে