News before News

সুন্দর নারায়াণগঞ্জ গড়তে সকলের সহযোগিতা চাই : আনোয়ার হোসেন 

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেছেন, জেলা পরিষদের রাজস্ব ২০ কোটি টাকা ও এডিবির ৬ কোটি টাকা নিয়ে কাজ শুরু করেছি। রাস্তাঘাট, বিদ্যালয়, ভ্যান রিক্সার সংস্কার কাজ করেছি। জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে পঙ্গুদের জন্য ৬৭ টি হুইল চেয়ার দেয়া হয়েছে, নারীদের জন্য ৫৭ টি সেলাই মেশিন দেয়া হয়েছে, সাবমারসিবল পাম্প বসানো হয়েছে ৫টি। বধ্যভূমি, ডাক বাংলো ও বিজয়স্তম্ভের কাজ করেছি। মায়ের মত জেলা পরিষদকে শ্রদ্ধা করি এবং জনগন যেন মনে করে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেছি সেটাই আমার লক্ষ্য। আমি নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য কিছু করতে চাই। আমার মৃত্যুর পর যেন মানুষ আমার ভালোটা বলতে পারে।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) বিকেলে জেলা পরিষদের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে জেলা পরিষদে সাংবাদিক সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। গত ২৩ জানুয়ারি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে তার দায়িত্বগ্রহনের ১ বছর পূর্তি হয়। দেশের বাইরে থাকার দেশে এসেই তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখী হন।

তিনি বলেন, স্বপ্ন দেখি ও সকলকে দেখাতে চাই এবং বাস্তবায়ন করতে চাই। বিজয়স্তম্ভের ওখানে জেলা পরিষদের কোন নামফলক নেই। সেখানে ময়লা ও দুর্গন্ধ থাকে, আমি সেটি আধুনিকায়নের একটি প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি।মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেয়েছি। নতুনভাবে কাজ করে নারায়ণগঞ্জবাসীকে দেখাতে চাই। বধ্যভূমিকে আধুনিকায়ন করা হবে। রুপগঞ্জে আধুনিক ডাকবাংলো করেছি। ২ কোটি ২৯ লক্ষ্ টাকার প্রজেক্ট শেষ করেছি। সেটি শীগ্রই উদ্বোধন করা হবে। জেলা পরিষদ ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের মাঝে কালভার্ট নির্মান চলছে। জেলা পরিষদের আধুনিক মিলনায়তনের প্রস্তুতি চলছে, অনুমতি ইতোমধ্যেই পাওয়া গেছে। পরিষদ কার্যালয়ের অত্যাধুনিক বাউন্ডারি দেয়াল নির্মিত হবে।
তিনি আরো বলেন, সরকারি তোলারাম কলেজের পাশে ৭তলা ভবন নির্মান হবে। সেখানে অবৈধ দখলগুলো মুক্ত করে আধুনিক ওয়াকওয়ে নির্মান করবো, সরকারের রাস্তাসমূহ বড় করা হবে তাই অপেক্ষার রয়েছি। অবৈধ যায়গা মুক্ত করে ভাস্কর্য ল্যান্ডস্কেপও তৈরী হবে। সোনাকান্দা দূর্গ, হাজীগঞ্জ কেল্লা ও পানামের সংস্কার করতে চাই। নারায়ণগঞ্জের সকলকে ভ্রমনবান্ধব পরিবেশ দিতে চাই। গিয়াসউদ্দিন আজম শাহের মাজার নতুন ভাবে দেখাতে প্রস্তুত করছি।
” সম্মানী ভাতা হিসেবে ৬০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে গতবার ১০ হাজার করে টাকা দিয়েছি। এবার মার্চে ৭০ জনকে দেব। জিপিএ ৫ প্রাপ্তদের বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে আরো হবে। ডনচেম্বারে ২০ তলা আবাসিক ভবন নির্মান করতে চাই। সকল টেন্ডার সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করছি, আগামীতেও করবো। জেলা পরিষদে মাস্তান টেন্ডারবাজদের সুযোগ নেই। একটি সুন্দর নারায়াণগঞ্জ গড়তে সকলের সহযোগিতা চাই। বন্দরে লাঙ্গলবন্দে নতুন ডাকবাংলো করা হবে, হবে আধুনিক স্নানঘাটও জানান তিনি।”

আপনার এগুলো পছন্দ হতে পারে